গাছ মানুষের সবচেয়ে ভালোবন্ধু। বাড়ির আঙ্গিণায় বা ছাদে অনেকে গাছের বাগান করেন। তবে আপনি চাইলে শোয়ার ঘরে রাখতে পারেন গাছ। রাতে অনেকের ঘুমের সমস্যা হয়। তবে সুস্থ থাকলে হলে অবশ্যই প্রতিদিন রাতে ৬ থেকে ৭ ঘন্টা ঘুমাতে হবে।

প্রতিদিনের কাজ ঠিকভাবে করার জন্য রাতে প্রয়োজন ঠিকমতো ঘুমানো। কারণ ঘুম পরবর্তী কাজের জন্য আপনার শরীরকে তৈরি করে।

অনিয়মিত খাদ্যাভ্যাস, শরীরচর্চার অভাব, গ্যাজেটনির্ভর আধুনিক জীবন অনেকের ঘুম কেড়ে নিয়েছে। অনেক সময় দেখা যায়, শরীর প্রচণ্ড ক্লান্ত কিন্তু ঘুম আসে না। রাত জাগা শরীরের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর।

রাতে ঘুম ঠিকমতো না হলে নানাবিধ শারীরিক রোগ দেখা দিতে পারে। তাই রাতে প্রয়োজনমতো ঘুমাতে হবে।

বিশ্বের শতকরা ৫০ শতাংশ লোক অনিদ্রায় ভোগেন। এই সমস্যার কারণে অনেকে ওষুধও খেয়ে থাকেন ও সকালে ঘুম থেকে উঠতে কষ্ট হয়। ঘুমে সমস্যা হলে শরীরও অসুস্থ হয়ে পড়ে।

যাদের ঘুমের সমস্যা দূর করতে ও  ভালো ঘুমের জন্য ঘরে রাখতে পারেন গাছ ।  গাছপালা শরীরে এমন কিছু প্রাকৃতিক প্রভাব ফেলে যা অনিদ্রা হ্রাস করে। গাছ থেকে নির্গত নির্মল বাতাস থেকে শরীরে অক্সিজেন সরবরাহ ভালো হয়।

আসুন জেনে নেই যেসব গাছ ঘরে রাখলে ঘুম ভালো হয়-

ল্যাভেন্ডার

ল্যাভেন্ডারের সুগন্ধ চায় না কে? এ গাছ শয়নকক্ষে রাখলে আপনার অতিরিক্ত মানসিক চাপ কমাবে এবং একটি প্রশান্তির ঘুম পেতেও সাহায্য করবে। এক গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে যে এ উদ্ভিদটি গর্ভবতী মায়ের স্ট্রেস লেভেল কমাতে সাহায্য করবে।

জুঁই ফুল

জুঁই ফুল শয়নকক্ষে রাখলে, এটি আপনার শরীরের উপর একটি শীতল প্রভাব ফেলে। এ উদ্ভিদটি আপনার ব্যক্তিগত উদ্বেগ মাত্রা কমাতে এবং অনেক ইতিবাচক শক্তি পেতেও সাহায্য করবে।

অ্যালোভেরা

ঘৃতকুমারী বা অ্যালোভেরা শুধু ত্বকের ক্রিম হিসেবেই ব্যবহৃত হয় না। এই উদ্ভিদটি আপনার ভাল ঘুম হতেও সাহায্য করবে। এ উদ্ভিদটি থেকে রাতে অক্সিজেন নির্গত হয়। ফলে আপনি পেতে পারেন একটি প্রশান্তির ঘুম। আর ঘৃতকুমারী উদ্ভিদটি খুব তাড়াতাড়ি বড় হয় এবং এটি পরিচর্যা করাও খুব সহজ কাজ।

সর্প উদ্ভিদ

নাসার মতে, শয়নকক্ষে সর্প উদ্ভিদ সবচেয়ে ভাল বায়ু ফিল্টারিং এর কাজ করে। এ উদ্ভিদটি গৃহসজ্জার কাজ ছাড়াও রাতে শয়নকক্ষে অক্সিজেন নির্গত হতে সাহায্য করে। এছাড়া ক্যান্সার সৃষ্টিকারী রাসায়নিক বায়ু পরিষ্কার করার জন্য স্পাইডার প্ল্যান্টটি খুবই কার্যকরী। রাতে একটি প্রশান্তির ঘুম পেতে এ উদ্ভিদটিও আপনার শোবার ঘরে রাখতে পারেন।

 

 

Facebook Comments


No comments so far.

Leave a Reply