শীতল ছোঁয়া শরীরের জন্য আরামদায়ক হলেও ত্বকের জন্য মোটেও নয়। শীতে আপানর ত্বকে নিশ্চয়ই কিছু পরিবর্তন লক্ষ্য করেছেন। শীত বাড়ার সাথে সাথে ত্বকেও বাড়তে থাকে বিভিন্ন রকম সমস্যা।বিশেষ করে শুষ্ক ত্বকের জন্য শীত যেন এক ভয়ংকর দুঃস্বপ্ন।এ কারনে এ সময়ে ত্বকের বিশেষ যত্ন নিতে হয়।তাই শীতকালে সব ধরনের ত্বকের যত্নে কি করা উচিত এ নিয়ে আজকে আমরা গুরুত্বপূর্ন কিছু টিপস দিব। আশা করি টিপসগুলো আপনাদের কাজে লাগবে—-

  • পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা

ত্বকের যত্নের প্রথম ধাপই হচ্ছে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা। শীতে অনেকেই গোসল এড়িয়ে চলেন আবার অনেকে অতিরিক্ত গরম পানি করতে পারেন। যাদের মুখে ব্রনের সমস্যা আছে তারা ক্রিমের সংগে একটু পানি মিশিয়ে ব্যবহার করতে পারেন।

  • সানস্ক্রিন ক্রিম ব্যবহার

অনেকেই মনে করেন শীতকালে সানস্ক্রীন ক্রিম লাগানোর দরকার নেই। এটা একদম ভুল ধারনা। শীতকালেও বাইরে বের হওয়ার ৩০ মিনিট পূর্বে এসপিএফ30 থেকে 50 যুক্ত সানস্ক্রীন ব্যবহার করুন।

  • পানি

শীতের শুষ্ক আবহাওয়া আমাদের শরীর থেকে প্রচুর পরিমান পানি শুষে নেয়।যার ফলে ত্বক হয়ে উঠে শুষ্ক ও রুক্ষ।তাই এ সময় প্রচুর পরিমাণ পানি পান করতে হবে।

  • খাওয়া-দাওয়া

সঠিকভাবে খাওয়া-দাওয়া ত্বক ভালো রাখতে সাহায্য করে।তাই খাদ্য তালিকায় যোগ করুন শীতকালীন বিভিন্ন ফলমূল ও শাক সবজি।টমেটো, গাজর, ফুলকপি,আমলকি,কমলা এগুলো ভিটামিন সি এর ভালো উৎস।যা ত্বক ভালো রাখতে সাহায্য করে।এছাড়া প্রতিদিন সকালে এক চা-চামচ মধু খেতে পারেন এত করে আপনার ঠান্ডা যেমন লাগবে না আবার ত্বকের উজ্বলতাও বাড়াবে।

  • পায়ের যত্ন

শীতে আমাদের একটি প্রধান সমস্যা হচ্ছে পা ফেটে যাওয়া। এ জন্য হালকা গরম পানি দিয়ে পা ভালো ভাবে ব্রাশ দিয়ে ঘসে পরিষ্কার করে ধুয়ে ভালোভাবে মুছে ফেলুন তারপর লোশন বা গ্লিসারিন লাগান। সবচেয়ে ভালো হয় রাতে শোয়ার আগে পায়ে ভালো করে ভ্যাসলিন মেখে মোজা পড়ে ঘুমান আহলে আর পা ফাটবেনা।

  • ঠোঁটের যত্ন

শীতে আর একটি প্রধান সমস্যা হচ্ছে ঠোঁট ফেটে যাওয়া। ঠোঁটের ত্বক অত্যন্ত পাতলা ও সংবেদনশীল তাই খুব দ্রুতই শীতে ঠোঁট আদ্রতা হারিয়ে ফেলে এবং ফেটে যায়।হালকা গরম পানিতে নরম টুথ ব্রাশ দিয়ে ঠোঁট ঘষে পরিষ্কার করে তারপার ভ্যাসলিন বা চ্যাপস্টিক ঠোঁটে হালকা করে লাগিয়ে দিন।দিনে ৩ থেকে ৪ বার চ্যাপস্টিক লাগাতে পারেন।ভুলেও জিভ দিয়ে বার বার ঠোঁট ভেজাবেন না। এতে ঠোঁট আরও শুষ্ক হয়ে ফেটে যাবে।

  • চুলের যত্ন

শীতকালে ধুলা-বালি বেশি থাকে বলে অনেকের চুলেই খুশকির প্রভাব বেড়ে যায়। এক্ষেত্রে সপ্তাহে ৩ থেকে ৪ দিন চুলে এ্যান্টি ড্যানড্রাফ শ্যাম্পু লাগাতে পারেন।শ্যাম্পু করার সময় আঙ্গুলের ডগা দিয়ে ভালকরে ম্যাসাজ করে তারপার ধুয়ে ফেলতে হবে। এছাড়াও খুশকি মুক্ত থাকতে নিয়মিত কিটোকোনাজল শ্যাম্পু ব্যবহার করতে পারেন।

  • শীতে মেক-আপ

শীতে মেকা-আপ নষ্ট হওয়ার ভয় থাকে না।তাই কালারফুল মেকা-আপে সাজিয়ে তুলুন নিজেকে।তবে মেক-আপ করার আগে অবশ্যই ময়েশ্চারাইজার লাগাতে হবে।শীতে ক্রিম বেসড মেক-আপ লাগানো ভালো।লিপিস্টিকের বদলে লাগাতে পারেন লিপগ্লস।

  • ফেসপ্যাকthoker-jotno ত্বকের-যত্ন

গরমে যে ধরনের ফেসপ্যাক ব্যবহার করেন সেগুলো শীতে ব্যবহার করা যাবে না।তাহলে ত্বক শুষ্ক হয়ে ফেটে যাবে।ময়দা, বেসন, চালের গুঁড়া। দিয়ে তৈরি ফেসপ্যাক লাগাবেন না।কারন এগুলো ত্বক শুষ্ক করে দেয়।

আশা করি এ টিপসগুলো মেনে চললে আপনাদের ত্বক থাকবে সুন্দর ও সমস্যামুক্ত।তাই ত্বকের যত্ন নিন শীতেও থাকুন সজীব ও উজ্জ্বল।এর পরেও যদি ত্বকে কোন সমস্যা দেখা দেয় তবে দেরী না করে ডাক্তারের পরামর্শ্ নিন । আশা করি শীতকালটা আপনাদের ভালোই কাটবে।

Facebook Comments


Comments are closed.