খুব পরিচিত ফল আপেল। কিন্তু আমরা বেশিরভাগই এর পুষ্টিগুণ সম্পর্কে জানি না। প্রতিদিন একটি করে আপেল খেলে দূরে থাকবে অনেক রোগ।

আপেলে রয়েছে ৯৫ ক্যালরি, ২৫ গ্রাম কার্ব, ৪ গ্রাম ফাইবার, পটাশিয়াম, ম্যাংগানিজ, কপার, ভিটামিন বি১, বি২, বি৬, ভিটামিন এ, ভিটামিন সি, ভিটামিন ই এবং ভিটামিন কে। এছাড়া আপেল ভিটামিন ই এর অন্যতম উৎস।

 

আসুন জেনে নিই যেসব রোগ প্রতিরোধ করবে আপেল-

 

১. আপেলে থাকা ফাইবার ও পানি অনেকক্ষণ পেটে থাকার কারণে ক্ষুধা লাগে না সহজে। ফলে ওজন কমে। তাই ওজন কমাতে চাইলে প্রতিদিন একটি করে আপেল খেতে পারেন।

২. আপেল শরীরের ক্ষতিকর কোলেস্টেরল বের করে দেয়। এর ফলে হৃদরোগ হওয়ার ঝুঁকি কমে।

৩. আপেলে থাকা ফাইবার রক্তে শর্করার পরিমাণ সঠিক রাখতে সাহায্য করে। যারা প্রতিদিন আপেল খান, তাদের ডায়াবেটিস হওয়ার সম্ভাবনা ২৮ শতাংশ কম থাকে।

৪. আপেল ডায়রিয়া ও কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে। এছাড়াও আপেল হজম শক্তি বৃদ্ধি করে।

৫. লিভারকে সুস্থ রাখতে সহায়তা করে আপেল। লিভারে জমা হওয়া ক্ষতিকারক উপাদানদকে খুব সহজে বের করে দিতে সাহায্য করে এই ফল।

৬. আপেল ক্যানসারের ঝুঁকি কমায়। কারণ, এতে থাকা ট্রাইটারপেনোয়েডস ক্যানসার সেল বৃদ্ধিতে বাধা দেয়।

৭. আপেল ও আপেলের জুস মস্তিষ্কের ক্ষয় এবং ভুলে যাওয়া সম্বন্ধিত সেল ড্যামেজ রুখতে সহায়তা করে। মূলত কেরাটিনের অভাবে মস্তিষ্কের সেলের ক্ষয় হয়। আর আপেলে বহুমাত্রায় কেরাটিন রয়েছে। এই কেরাটিন নিউরোট্রান্সমিটার ও অ্যাসিটাইলকোলিন উৎপাদন করে মনে রাখার ক্ষমতা বৃদ্ধি করে।

৮. আপেলে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং ভিটামিন শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে।

৯. আপেলে মজুদকৃত কেরাটিন অ্যাজমা ও ফুসফুসের বিভিন্ন ইনফেকশনের সমস্যা দূর করে। এছাড়া আপেলে অধিকমাত্রায় ভিটামিন সি রয়েছে, যা কফ থেকে মুক্তি দেয়।

১০. আপেলে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং ফাইটোনিউট্রিয়েন্টস দৃষ্টিশক্তি এবং রাতে দেখার ক্ষমতাকে বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে। এছাড়া চোখের বিভিন্ন রোগ থেকে মুক্তি দিতেও সাহায্য করে।

 

Facebook Comments


No comments so far.

Leave a Reply