কিভাবে সেকেন্ড-হ্যান্ড মসলা চিনবেন
আপনি জানেন কি বাজারে প্রতিটি মসলা ৩-৪ টা গ্রেডে পাওয়া যায়। দেশের বাজারে সেকেন্ড হ্যান্ড মসলায় সয়লাব। এই যেমন জিরা থেকে জিরা পানি তৈরির পর সেগুলো আবার মসলা হিসেবে বিক্রি হচ্ছে। এলাচ, দারুচিনি, লবঙ্গ এই সব গুলো দিয়ে তৈরি হয় সুগন্ধি তেল যার লিটার ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত। তেল তৈরির পর এই মসলা গুলোকে আবার বাজারে বিক্রি করা হয়। যেগুলো রান্নায় ব্যবহার করলে রান্নার স্বাদ পাওয়া যায়না।   বাজারে নিম্ন মানের ভেজাল গুড়া মসলার পরিমাণ এত বেশী, যে কারণে এ ভেজালের ভিড়ে কোনটা খাঁটি তা নিয়ে ক্রেতাগণ বিপাকে পড়ে যান। চলুন জেনে নেই আসল মসলা চেনার উপায়।
কোন মসলা সেকেন্ড হ্যান্ড কিভাবে বুঝবেনঃ
১। জিরার গায়ে গুড়ো লেগে থাকা, রঙ ফ্যাকাসে হয়ে যাওয়া বা দেখে মনে হবে একটু ফোলা এই গুণ গুলো পেলেই বুঝবেন এটা সেকেন্ড হ্যান্ড!
২। সবুজ এলাচের রঙ এক বারে ফ্যাকাসে হয়ে যাওয়া, বেশিরভাগ এলাচ ফাটা থাকা এবং ঘ্রান কম থাকলে বুঝবেন এলাচ ভেজাল।
৩। দারুচিনি থেকে সুগন্ধি বানানোর কারনে ছোট ছোট টুকরো করতে হয়। দারুচিনি কেনার সময় একটু লম্বা দেখে কিনবেন। ভালো গ্রেডের দারুচিনি প্রায় ১৫ ইঞ্চি লম্বা করে কাটা হয়।
এভাবে একটু সচেতন থাকলেই মসলার ভেজাল এড়িয়ে চলতে পারবেন।
ভেজাল মসলার নমুনা

ভেজাল মসলার নমুনা

সমুদ্রপথে সাধারণত সিঙ্গাপুর, চীন, ভিয়েতনাম, গুয়াতেমালা, ইন্দোনেশিয়া থেকে বিভিন্ন ধরনের অধিকাংশ মসলাপণ্য আসে। এছাড়া পাকিস্তান, সিরিয়া, আফগানিস্তান, কলম্বিয়া, মাদাগাসকার, মালয়েশিয়া, শ্রীলংকা থেকেও আসে কিছু মসলাপণ্য। মোট ২৪টি দেশ থেকে মসলা ঢোকে বাংলাদেশে।
দেশে আমদানি করা মসলা গুলোর মধ্যে অন্যতম গোলমরিচ, জিরা, এলাচ ও দারুচিনি, লবঙ্গ। ভালো মানের জিরা আসে তুরস্ক থেকে। সব থেকে ভালো এলাচ আসে গুয়াতেমালা থেকে।
খাতুনগঞ্জ হচ্ছে দেশের মসলা আমদানির প্রান কেন্ত্র। আমরা সরাসরি খাতুনগঞ্জের আমদানিকারক দের কাছ থেকে সেরা মানের মসলা সংগ্রহ করার চেস্টা করি।
আমারা যে মসলা গুলো কিনি সেগুলো কেনার সময় বিদেশ থেকে যেভাবে আসে সেটা ইন্ট্যাক্ট অবস্থায় কেনার চেস্টা করি। ইন্ট্যাক্ট ইম্পোর্টেড কাটুন কেনার সুবিধা এখানে পন্যের অরিজিনাল উৎপাদন তারিখ, মেয়াদ, গ্রেড সংরক্ষণ পদ্ধতি উল্লেখ থাকে।
আমাদের মসলা গুলো ভালো মন্ধ যাচাই করার জন্য খুব সামান্য অর্ডার করে দেখতে পারেন।

Facebook Comments


No comments so far.

Leave a Reply